গোগনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন: তিন প্রার্থী মাঠে

শহর সংবাদদাতা: গোগনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে, ততই বাড়ছে এর হিসেব নিকেশ। এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বর্তমানে মাঠে ময়দানে দাবরিয়ে বেড়াচ্ছে তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থী। এদের মধ্যে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নূর হোসেন সওদারও রয়েছেন। তবে আলোচনার শীর্ষ কেন্দ্রবিন্দুতে আছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ সেলিম ওসমানের মনোনীত প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা জসিম উদ্দিন আহমেদ ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমানের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে প্রচার করে আসা ফজর আলী। যদি ফজর আলীকে আদৌ শামীম ওসমান মনোনীত করেছেন কি না, এ বিষয়ে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে সাংসদ সেলিম ওসমানের মনোনয়ন পেয়ে অনেকটা ফুরফুরে জসিম উদ্দিন। তবে শেষ মহুর্ত্বে তিনিও টিকে থাকবেন কি না, এ নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন। কেননা, আওয়ামী লীগ নেতা জসিম উদ্দিনের সাথে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়রের রয়েছে সখ্যতা। মেয়র ডা: সেলিনা হায়াৎ আইভীর হকার বিরোধী আন্দোলনের সময় জসিম উদ্দিনকে তার পাশে দেখা গেছে। ফলে এ নিয়ে জসিম উদ্দিনকে উপর তেমন একটা আস্থা নেই বলেও বিশ্বস্ত সূত্রে জানাগেছে। তাই এসব কারণে সেলিম ওসমান শেষ মুহুর্তে জসিম উদ্দিনের উপর থেকে নিজের মনোনয়ন তুলে নিবেন কি না, সময়ই তা বলে দিবে।

এছাড়াও জসিম উদ্দিনের প্রতিদ্বন্ধি ফজর আলীকে যদি সত্যি সত্যিই সাংসদ শামীম ওসমান মনোনীত করে থাকেন, তাহলেও নির্বাচনে হিসেব নিকেশ উল্টো হবে বলেও ধারনা করা হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে শামীম ওসমানের মনোনীত প্রার্থী ফজর আলীরই বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।

গত নারায়ণগঞ্জ ক্লাব নির্বাচনে একইভাবে এ সেলিম ওসমান ও শামীম ওসমান দুই প্রার্থীকে মনোনয়ন দিয়েছিলেন। সেলিম ওসমানের মনোনীত প্রার্থী ছিলেন এম সোলাইমান হোসেন ও শামীম ওসমানের প্রার্থী ছিলেন তানভীর আহমেদ টিটু। নির্বাচনে বিপুল ভোটে টিটু জয়লাভ করেন। তাই সচেতন মহলের ধারনা, গোগনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অনেকটা এমনই হতে পারে ফলাফল। কেননা, সেলিম ওসমানের চাইতে এখনও অনেক বেশি জনপ্রিয়তা আছে শামীম ওসমানের। সেই জনপ্রিয়তাই সেলিম ওসমানের মনোনীত প্রার্থীকে হারাতে যথেষ্ট বলেও মনে করেন মহলটি।