গভীর রাতে কাউন্সিলর খোরশেদের বাড়িতে হামলা

ডেস্ক নিউজ: নারায়ণগঞ্জের আলোচিত কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের বাড়িতে রাতভর দফায় দফায় হামলা করেছে একদল সন্ত্রাসী।

সোমবার (৯ আগস্ট) বিকেলে এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন কাউন্সিলর খোরশেদের স্ত্রী আফরোজা খন্দকার লুনা। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের হামলার সময়ের ছবি ও ভিডিও দেখান। এতে ফতুল্লার গাবতলী টাগারপাড় এলাকার মো. ইমরানের পুত্র ইসতু (২৮) সহ অজ্ঞাত ৪/৫ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

অভিযোগে লুনা উল্লেখ করেন, রোববার (০৮ আগস্ট) দিনগত রাত ১২টা ১০ মিনিটের দিকে অভিযুক্তরা রামদা, বটি, হকিস্টিক সহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমার বাড়ির সামনে আসেন। এ সময় তারা আমার স্বামী ১৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ ও তার বড় ভাই অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারের নাম ধরে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও প্রাণনাশের হুমকি দেন। এরপর তারা তাদের সঙ্গে থাকা সাদা রংয়ের প্রাইভেটকার (ঢাকা মেট্রো-গ- ১৫-৩৫৩৫) যোগে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

কিছুক্ষণ পর আবার তারা সংঘবদ্ধ হয়ে সাদা রংয়ের প্রাইভেটকার যোগে রাত ১টা ১০ মিনিটে ঘটনাস্থলে আসেন এবং এজাহারনামীয় আসামি সহ অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীরা হাতে চাপাতি, বুটি এবং হকিস্টিক দিয়ে আমার বাড়ির গেটে এলোপাথাড়ি কোপাতে থাকেন। সন্ত্রাসীদের হামলায় আমার স্বামী কাউন্সিলর খোরশেদের কার্যালয়ের জানালার গ্লাস, বাড়ির প্রধান দরজা এবং বাড়ির বিভিন্ন অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

এর আগেও সাঈদা আক্তার ওরফে সাঈদা শিউলী (৪০) আমাকে বিভিন্ন সময়ে আমার বাড়িতে ও আমার স্বামীর কার্যালয়ে এসে সপরিবারে আমাকে হত্যার হুমকি দেয়। আসামি ইসতুর সঙ্গে শিউলীর ব্যবসায়িক সম্পর্ক আছে। ঘটনার বিষয়ে আমি তাৎক্ষণিক ৯৯৯ এ জানালে ফতুল্লা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

আফরোজা খন্দকার লুনা জানান, আমি অভিযোগ দায়ের করেছি এবং আশা করছি প্রশাসন এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে অভিযুক্তদের আইনের আওতায় আনবে।