ফতুল্লার কুতুবপুরে সহযোগী সন্ত্রাসীদের হামলায় শ্যামল আহত

175

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ফতুল্লার কুতুবপুরে যুবলীগ ক্যাডার এফ,এম,খোকনের ভগ্নিপতি শ্যামলকে(৩৫) কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে দূর্বৃত্তরা।বুধবার (১৭ফেবৃরুয়ারী) সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে ফতুল্লা থানার কুতুবপুরের নিশ্চিন্তপুরস্থ গ্রাম সরকার বাড়ীর সামনের রাস্তায় ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানায়,সকাল সাড়ে নয়টার দিকে শ্যামল ও স্থানীয় সন্ত্রাসী অনিক ও তার সহযোগিদের  সাথে কোন এক কারনে কথাকাটি হয়।কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে অনিক দৌড়ে গিয়ে একটি দা এনে শ্যামলকে এলোপাতাড়ি ভাবে কোপাতে থাকে।শ্যামল তখন নিজেকে বাঁচাতে ডাক- চিৎকার করলে স্থানীয় পথচারী সহ শ্যামলের স্বজনেরা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা দৌড়ে পালিয়ে যায়।পরে আহত শ্যামলকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

আহত শ্যামলের শ্যালক এফ,এম,খোকন জানায়,  আসন্ন কুতুবপুর ইউপি নির্বাচনে তার ভগ্নিপতি শ্যামল চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রচারনা চালিয়ে আসছিলো।এর জের ধরেই বিল্লাল হত্যা মামলার আসামী অনিক তার ভাই লিটন সহ একাধিক সন্ত্রাসী পূর্বপরিকল্পিত ভাবে শ্যামলকে হত্যা করার উদ্দেশ্য এই হামলা চালায়।হামলায় আহত শ্যামলকে হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বাসায় নিয়ে আসা হয়েছে বলে তিনি জানান।নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্র মতে,নির্মান সামগ্রী সরবরাহ কে কেন্দ্র করে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।স্থানীয়দের দাবী,হামলায় আহত শ্যামল ও হামলাকারীরা একই গ্রুপের সদস্য ছিলো।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা থানার এস,আই শামীম জানান,ঘটনার সংবাদ পেয়ে তিনি গেলে সেখানে গিয়ে হামলাকারী এবং হামলার শিকার কাউকেই পাননি।তিনি ঘটনাস্থলে যাওয়ার পূর্বেই তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।তবে লোকমুখে তিনি জানতে পারেন যে আহত শ্যামলের সাথে হামলাকারীদের প্রথমে কথা কাটাকাটি হয় এর এক পর্যায়ে হামলাকারীদের একজন দৌড়ে বাসা থেকে দা এনে শ্যামলের উপর হামলা চালায়।তবে কি কারনে কথা কাটাকাটি হয়েছে তা প্রতক্ষ্যদর্শীদের কেহ জানাতে পারেনি।হামলার সময় আতংকে অনেকেই দোকান পাট বন্ধ করে ফেলে।

এ বিষয়ে ফতুল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসলাম হোসেন জানান,হামলার ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে বলে তিনি জানান।