ফতুল্লার কুতুবপুরে যুবককে কুপিয়ে হত্যা

251

আমাদের নারায়ণগঞ্জ ডটকমঃ ফতুল্লায় রাকিব (২০) নামের এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে যুবলীগ ক্যাডার গিয়ার মানিক ও তার সহযোগী সন্ত্রাসীরা। রোববার (চাঁদ রাত) গভীর রাতে ফতুল্লার পাগলা রেলস্টেশন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সোমবার (ঈদের দিন) সকালে পুলিশ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

নিহত রাকিব ফতুল্লার নয়ামাটি মুসলিমপাড়া এলাকার মজিদ হাওলাদারের বাড়ির ভাড়াটিয়া নওশেদ বেপারীর ছেলে। তাদের গ্রামের বাড়ি শরিয়তপুর জেলার নয়াপাড়ার নড়িয়ায়। তিনি ফতুল্লার নয়ামাটি এলাকায় কাদিরের ভাঙারির দোকানের কর্মচারী ছিলেন।

হত্যাকাণ্ডের সময় রাকিবের সঙ্গে থাকা তার বন্ধু আব্দুল্লাহ জানান, রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে ঈদের কেনাকাটা শেষে একটি রিকশায় করে তারা বাসায় ফিরছিলেন। তাদের রিকশাটি পাগলা রেলস্টেশন এলাকায় আসলে একই এলাকার গিয়ার মানিকসহ ৪/৫ জন পথরোধ করে। তারা আব্দুল্লাহকে রিকশা থেকে নামিয়ে চোর চোর বলে ধাওয়া দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। কিছুক্ষণ পর তিনি (আব্দুল্লাহ) এসে দেখতে পান রাকিবের রক্তাক্ত মরদেহ রাস্তায় পড়ে রয়েছে।

রাকিবের বাবা নওশেদ বেপারী জানান, তার দুই মেয়ে এক ছেলে। এদের মধ্যে রাকিবই একমাত্র ছেলে। সে ভাঙারির দোকানে কাজ করে সংসার চালাতো। কী কারণে রাকিবকে খুন করা হয়েছে তা তার জানা নেই। খুনিদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন তিনি।

স্থানীয়রা জানায়, সন্ত্রাসী মানিক অরুফে গিয়ার মানিক যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। ফতুল্লা থানা যুবলীগের সহ-সভাপতি পরিচয়দানকারী আশরাফুল ইসলাম জাকিরের সাথে দীর্ঘদিন ধরে রাজনৈতিক কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত। সম্প্রতি জাকিরের ছবির সাথে হত্যাকান্ডের মূল হোতা গিয়ার মানিকের ছবি ব্যবহার করে ১৫ আগস্টের জাতীয় শোক দিবসকে ঘিরে কুতুবপুর জুড়ে ব্যানার-ফেস্টুন সাটানো হয়েছে।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, তাৎক্ষিণকভাবে হত্যার কারণ জানা যায়নি। তবে তদন্ত হচ্ছে, জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শাকিল ও হৃদয় নামে ২ জনকে আটক করা হয়েছে।

SHARE