নারায়ণগঞ্জে কঠোর অবস্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

23

আবদুর রহিম
ঈদকে ঘিরে প্রতারক চক্র সক্রিয় হয়ে ওঠে। এবারো সক্রিয় হতে শুরু করেছে। কোরবানীর পশুর হাট,বিপণী বিতানসহ ব্যবস্ততম স্থানে এসব চক্রের সদস্যরা বিভিন্ন গ্রুপে বিভক্ত হয়ে কাজ করে থাকে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানাগেছে। পাশাপাশি কোরবানীর পশুর হাট বসানোকে ঘিরেও একটি সন্ত্রাসী চক্র সড়ক এবং নদী পথে সিক্রয় থাকে। যদিও পুলিশ সুপার এসব হাট সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারী দিয়েছেন। কিন্তু তারপরও এসব হাট সন্ত্রাসীদের তৎপরতা থেমে নেই বলে বিশ^স্ত সূত্রে জানগেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের চোখ ফাঁকি দিয়ে এসব হাট সন্ত্রাসীরা নিজ নিজ হাটে কোরবানীর পশু হাটে নিয়ে আসার চেষ্টা করে থাকে। ইতোমধ্যে সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির পুলিশ সুপারের কাছে একটি মৌখিক অভিযোগ দিয়েছেন হাট বাসতে বাধা গ্রস্ত হচ্ছেন দাবি করে। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এসব অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। কেউ কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


সূত্রমতে, ঈদ কিংবা কোন উৎসবকে ঘিরে বিভিন্ন শ্রেণীর অপরাধীরা সক্রিয় হয়ে উঠে। এদের মধ্যে পকেটমার,চাঁদাবাজ,অজ্ঞান পার্টি,জাল টাকা চক্রসহ হাট সন্ত্রাসীরাও রয়েছে। এছাড়া মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ীরাও রয়েছে এই তালিকায়। এসব অপরাধীদের দমনে পুলিশ,র‌্যাব সদস্যরা কাজ করছে। পোষাকে এবং সাদা পোষাকে বিভিন্ন ভঅগে বিভক্ত হয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছে। শহর ও শহরতলীর বিপণী বিতান এবং পশুর হাটগুলো নজরদারীতে রেখেছে। কিন্তু তারপরও কিছু অপরাধী তাদের কাজ করেই যাচ্ছে। বিশেষ করে হাট সন্ত্রাসীরা নদী ও সড়ক পথে সক্রিয় রয়েছে। প্রশাসনের চোখ ফাকি দিয়ে এসব হাট সন্ত্রাসীরা তাদের কাজ করছেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানাগেছে। ইতোমধ্যে বেশ কিছু অপরাধী তাদের কৌশল অনুযায়ী কাজ শুরু করে দিয়েছে। হাটে কোরবানীর পশু নামাতেও কেউ কেউ বাধা দিচ্ছে বলেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কাছে অভিযোগ করেছে। এছাড়া বিভিন্ন স্থানে সড়ক ও নদী পথে হাট ইজারাদারদের ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা নিজ নিজ হাটে কোরবানীর পশু নামাতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে বলেও বিভিন্ন সূত্রে জানাগেছে।

গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসনের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারী ফোরাম আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ বলেছেন, বর্তমানে কোরবানী পশুর হাটে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ নিরলসভাবে কাজ করছে। কেউ গরুর হাটে অরাজকতা করতে পারবে না। দরপত্র সিন্ডিকেট বিষয়কে কেন্দ্র করে সদর উপজেলা অফিসে যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে তাতে পুলিশ মামলা নিয়েছে এবং আসামী গ্রেফতার করেছে। আমরা গরুর হাট নিয়ে কাউকে বিশৃঙ্খলা করতে দিব না। ইতোমধ্যে সিদ্ধিরগঞ্জ জোর করে কোরবানি পশু নামানোর চেষ্টা করাকে কেন্দ্র করে মামলা নিয়েছি এবং আসামী গ্রেফতার করেছি।


এব্যাপারে ডিআইও-২ মো: সাজ্জাদ রোমান জানান, অপরাধ দমনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কাজ শুরু করে দিয়েছে। গত ঈদুর ফিতরে শহরে মহিলা পকেটমার,চাঁদাবাজ আটক করেছিলাম, এবারো আইনশৃঙ্কলা বাহিনীর সদস্যরা কাজ করছে। ইতোমধ্যে পোষাকের পাশাপাশি সাদা পোষাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদ্যরা বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত হয়ে কাজ করছে। এছাড়া কোরবানীর হাট নিয়ে যাতে কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা না হয় সে ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কাজ করছে। তারপরও যদি কেউ কোন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করার চেষ্টা করেন তা হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে না। অপরাধী যেই হোক কোন ছাড় নয়।

SHARE